১৫ জুন ২০১৫, আজ আমাদের বিদায়ের পালা। আজ সকালে ঘুম থেকে উঠে গেস্ট হাউজের মালিকের সাথে সকাল বেলা হাটলাম। তারপর গোসল করে সকালে নাস্তা করলাম। আমাদের সবাই আজ বাড়ির জন্য প্রস্তুত। তবে আজও বিদ্যালয়ে যেতে হবে। বিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রীদের নিকট হতে বিদায় নিতে হবে। যথা সময়ে লরা লিন্ডা গাড়ি নিয়ে আসল। আমি ও প্রধান শিক্ষক গাড়িতে উঠে বিদায় সংক্রান্ত আলাপই করলাম। লরা লিন্ডা বাংলাদেশে আসলে কী কী নিয়ে আসতে হবে বা খানার মেনু কী হবে ইত্যাদি।

আজ ছাত্ররা জানতে পেরেছে আমরা বাংলাদেশে চলে যাচ্ছি। সমাবেশের গানা শোনলাম। বিদ্যালয়ের ম্যামগণ আমাদেরকে হাতের কাজ করা কিছু গিফট দিল। ছাত্ররাও কিছু হাতের কাজ এবং খেলনার উপকরণ দিল। আমাদের প্রধান শিক্ষককে বই ও ডায়েরী উপহার দিল। আমাদের বিদায়ের অনুষ্ঠানটি অনাড়ম্বর হলেও মনে রাখার মত ছিল। সবায় আন্তরিকতার সহিত আমাদের বিদায় দিল।

বিকেলে আমরা সবায় একত্রিত হলাম। পীযুষ, জোতিষ রায় এবং রতন কুমার বশাকও এসেছে গেস্ট হাউজে। তারা খুবই আবেগ আপ্লুত। রাতে  আমাদেরকে উইলিয়াম ক্রিস নিয়ে যাবে হিদ্রো বিমানবন্দরে।

Comments are closed.