২১-০২-২০০৯, গত পরশু কুয়ালালামপুর থেকে একজন বাঙ্গালী কন্ঠে ফোনে করে  জানাল, যে আমি ওয়েস্টার্ণ ইউনিয়নের পুরস্কার পেয়েছি। মাস খানেক আগে কমতায় চার/পাঁচ জনের ইন্দোনেশিয়ান মেয়ের ওয়েস্টার্ণ ইউনিয়নের ক্যাম্পিং দল আমাদের কাছে আসল। তারা বৈধ পথে ওয়েস্টার্ণ ইউনিয়নের মাধ্যমে বাংলাদেশসহ অন্যান্য দেশে টাকা পাঠানোর জন্য উৎসাহ প্রদান করে। তারা কতগুলো ফরম দিলো যাতে পুরণ করে দেই। এই পুরণকরা ফরমের উপর লটারী মাধ্যেম ওয়েস্টার্ণ ইউনিয়নের পুরস্কার প্রদান করবে।

আমি ফরমের সকল তথ্য সঠিকভাবে পুরণ করে ইন্দোনেশিয়ান মেয়ে দিলাম। এই মেয়েটি আমাদের ফরিদপুরের আদিলের বান্ধবী। আদিল পেনাং এ আছে প্রায় চৌদ্ধ বছর। আমাকে মামা বলে ডাকে।

কুয়ালালামপুর থেকে মিল্লাত নামের লোকটি আরো জানাল, কুয়ালালামপুর থেকে ২১-০২-২০০৯, শনিবার ওয়েস্টার্ণ ইউনিয়নের পুরস্কার মানি এক হাজার রিংগিত আনতে হবে। আমি ২১-০২-২০০৯, কুয়ালালামপুর গিয়ে ওয়েস্টার্ণ ইউনিয়নের পুরস্কার ১০০০ রিংগিত আনলাম। এই অভাবে এভাবে ওয়েস্টার্ণ ইউনিয়নের পুরস্কার আমার খুবই প্রয়োজনীয় ।

Comments are closed.