{ঘটানাটি ২০১৪ সালের ১৮ অক্টোবর। ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছিলাম। ফেসবুকের লিখাটি হুবাহু কপি করে এখানে দিলাম। }
গত ২৫ আগস্ট ২০১৪ তারিখে দৈনিক যুগান্তর পত্রিকায় গাজীপুর খান মডেল হাইস্কুল এন্ড কলেজ, তিতাস, কুমিল্লা এর জন্য সরকার বিধি মোতাবেক কলেজ শাখায় শূন্য পদে প্রভাষক কৃষি সহ অন্যান্য পদের লোক চাওয়া হয়। উক্ত (প্রভাষক কৃষি) পদে আমি আবেদন করি এবং আমাকে ইন্টারভিউ কার্ড প্রদান করেন। আজ আমি ইন্টারভিউতে উপস্থিত হই। লিখিত পরিক্ষায় আমি খুব ভাল করি।প্রভাষক কৃষি পদে সাতজন পরিক্ষার্থীর মধ্যে ছয়জন উপস্থিত হই। মৌখিক পরিক্ষার জন্য আমরা চারজন নির্বাচিত হই। ইন্টারভিঊ বোর্ডে সালাম দিয়ে প্রবেশ করি। ইন্টারভিউ বোর্ডে সর্বপ্রথম প্রশ্ন করলেন, বিষয় ভিত্তিক এক্সপার্ট কুমিল্লা সরকারি কলেজের জনাব হারুন অর রশিদ (পরে আমি উনার নাম জানলাম) আমাকে প্রশ্ন করেন,

আপনার তো যোগ্যতাই নেই, কিভাবে ইন্টারভিউ দিতে আসলেন?

আমি বললাম জি স্যার, আমি কলেজের কৃষি শিক্ষা প্রভাষক নিবন্ধন পরিক্ষায় পাশ করে ইন্টারভিউ দিতে এসেছি। এখানে স্কুল ও কলেজ শাখায় ৯ জন নিয়োগ করা হবে তাই ইন্টারভিউ বোর্ডটি বড় আকারের। এখানে উপস্থিত আছেন কুমিল্লার হোমনা-তিতাসের এম, পি জনাব আমির হোসেন ভূঁইয়া, কলেজের অধ্যক্ষ জনাব আব্দুল বাতেন, স্থানীয় প্রশাসন, তিতাস উপজেলার মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোসাম্মৎ আনোয়ারা চৌধুরী, ডিজির প্রতিনিধি, অন্যান্য বিষয় ভিত্তিক এক্সপার্টসহ আরো অনেকে। এতবড় বোর্ডে মাননীয় এক্সপার্ট কুমিল্লা সরকারি কলেজের জনাব হারুন অর রশিদ সাহেব আমাকে এই ধরনের নেতিবাচক প্রশ্ন কেন করলেন? এটা আমার বোধগম্য নয়। তাহলে অধ্যক্ষ আমাকে কেন ইন্টারভিউ কার্ড দিলেন? বাংলাদেশ নিবন্ধন ও প্রতায়ণপত্র কমিটি আমাকে কেন পাশ করালেন? ইন্টারভিউতে আমাকে প্রায় ১০/১২ টি প্রশ্ন (সাধারন প্রশ্ন, আপনার নাম কী? এখন কোথায় আছেন? ইত্যাদি বাদ দিয়ে) করে আমি ২টি প্রশ্নের উত্তর দিতে পারিনি। মাননীয় এক্সপার্ট কুমিল্লা সরকারি কলেজের জনাব হারুন অর রশিদ আমাকে এই নেতিবাচক প্রশ্ন দিয়ে শুরু করেন এবং উনার একটি প্রশ্নের উত্তর দিতে পারিনি। প্রভাষক পদে এটা আমার জীবনের প্রথম ইন্টারভিউ।ইন্টারভিউ বোর্ডে সর্বপ্রথম প্রশ্ন করলেন, আপনার তো যোগ্যতাই নেই, কিভাবে ইন্টারভিউ দিতে আসলেন?

2 Comments

Shahzaman ShuvohOctober 18, 2018 at 9:04 pm

sir apnar ei site er mul uddessho kee?
ei site e ekjon manus keno visit korbe? ta jodi ektu bolten ta hole upokrito hotam

 

    Shahzaman ShuvohOctober 18, 2018 at 9:04 pm

    Nice Questions